Breaking News

অভিনব পদ্ধতিতে বোতল দিয়ে ফাদ পেতে টিয়া কে বোকা বানিয়ে যুবকের ছলনাময় ডাকে সাড়া দিতে এসে বন্দি টিয়া। পাখি ধরার এমন অভিনব পদ্ধতি তুমুল ভাইরাল নেটদুনিয়ায়

নিজস্ব প্রতিবেদন:যে সমস্ত বুনো পাখি খাদ্যের জন্য শিকার করা হয় বা শিকারের যোগ্য, তাদের শিকারযোগ্য পাখি বা গেম বার্ড বলে। বুনো এই অর্থে যে এরা গৃহপালিত নয়। এদের গেম বার্ড বলা হয় কারণ এদের শিকার করাটা অনেকসময় একধরনের বিনোদন হিসেবে গণ্য করা হয়। পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে খাদ্য এবং বিনোদনের উদ্দেশ্যে পাখি শিকার করা হয়।

অঞ্চল ভেদে কোন ধরনের পাখি শিকার করা যায় আর কোন ধরনের পাখি শিকার করা যায় না তা নির্ভর করে ঐ অঞ্চলে পাখির প্রাপ্যতা, বৈচিত্র্য, আঞ্চলিক স্বাদ, আবহাওয়া এবং শিকার আইনের ওপর।দেখতে অনেকটাই মুরগির মতো। শুধু আকারে খানিকটা ছোট। লেজটা অধিকাংশ সময় খাড়া থাকে। হাঁটার সময় লেজটাকে নাচিয়ে হাঁটে। জলাধারে কিংবা স্যাঁতস্যাঁতে এলাকায় বেশি দেখা যায়।

খাবারের খোঁজে অনেক সময় মানুষের কাছাকাছি চলে আসে। তবে ধরার আগেই ফুরুৎ করে দৌড়ে পালায়। প্রাপ্তবয়স্ক পাখিদের চেয়ে বাচ্চারা বেশি হুঁশিয়ারি। সহজে ধরা যায় না ওদের। বিশেষ করে জলাশয়ে বিচরণরত কালে বাচ্চাদের ধরা কঠিন থেকে কঠিনতর কাজ। চতুর এ পাখি চেনেন না এমন মানুষের সংখ্যা খুব কমই আছেন আমাদের দেশে।আদিকাল থেকেই বিভিন্ন প্রাণী মানুষের দাসত্ব গ্রহণ করে আসছে।

মানুষ বিভিন্ন কায়দায় বিভিন্ন বন্যপ্রাণীদের কে পোষ মানিয়ে নিয়েছে।তারি ধারাবাহিকতায় এখনো মানুষ বিভিন্ন বন্য প্রাণীকে শখের বশে পোষ মানিয়ে থাকে। যেমন শালিক, দিয়া, ময়না, কাকাতুয়া ইত্যাদি। এদের মধ্যে অন্যতম একটি হচ্ছে টিয়া। আমাদের দেশে টিয়া প্রায় সর্বত্রই দেখা যায়।বিশেষ করে যারা গ্রামে বসবাস করে অর্থাৎ তাদের শৈশবকাল গ্রামে কেটেছে তারা টিয়া সম্পর্কে খুব ভাল করেই জানে।

টিয়া পাখি পোষ মানাতে হলে তাকে বাচ্চা থেকে পালন করতে হবে। যখন টিয়া পাখিটি মানুষের সাথে ছোটবেলা থেকে বড় হয় তখন তার মধ্যে আর বন্যা স্বভাবটি ধারণ হয় না। আর আস্তে আস্তে মানুষের বিভিন্ন আচার আচরণ রপ্ত করে থাকে। টিয়া শহরের বিভিন্ন পাখির দোকানেও দেখা যায়।তবে আনেক দাম দিয়ে তা কিনতে হয়। কিন্তু গ্রামে এগুলো দাম দিয়ে কিনতে হয় না।

গ্রামে পাখির বাসা থেকে এগুলো সংগ্রহ করা হয়। এবং যারা গ্রামে পালন করে তারা বিভিন্ন প্রাকৃতিক খাবার খাইয়ে বড় করে। এবং এগুলো অনেক শক্তিশালীও হয়ে থাকে। কিন্তু শহরের বিভিন্ন পাখির দোকানে যে টিয়া পাখি গুলো পাওয়া যায় এগুলোকে বিভিন্ন কৃত্রিম খাবার খাইয়ে বড় করে।বর্তমানে পৃথিবীতে পোষা প্রাণী চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। যার কারণে পোষা প্রাণী গুলোর দাম দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আমাদের দেশের চাইতে বহির্বিশ্বের এই পোষা প্রাণী এগুলোর চাহিদা আরো অনেক বেশি। এবং সেখানে এর দামও অনেক বেশি। অন্যান্য পাখিগুলো সচরাচর না পাওয়া গেলেও শালিক , পিয়া কিন্তু আমাদের দেশে সচরাচর সব জায়গাতেই মিলে। এবং এই টিয়া পাখি পালন করাও খুব সহজ।টিয়া পাখি পালন করতে বাড়তি খরচ কম লাগে কেননা সচরাচর আমরা যা খাই টিয়া পাখিও কিন্তু তা খাওয়ানো যায়।

তবে যারা বেশিরভাগ ফল খেতে ভালোবাসে। তবে প্রথম প্রথম সকল ধরনের খাবার খাওয়ানো যাবে না। তাকে ধীরে ধীরে অভ্যস্ত করে নিতে হবে।আমরা এই ভিডিওটা দেখতে পেয়েছি কিভাবে একটি যুবক খুব সহজেই টিয়া পাখিকে স্বীকার করেছে সে প্লাস্টিকের বোতলে কিছু চাল দিয়ে টিয়া পাখি ধরার জন্য এবং সেই বোতলের ভিতর কিছু চাল দিয়ে দেয়।।

পরে সে চলে যায় কিছুক্ষণ পড়ে এসে দেখে তার ফাঁদে পা দিয়েছে টিয়া পাখি। তারপর সে পাখিটিকে বন্দি করে ফেলে

Check Also

সমুদ্রে গটলো এক বিরল ঘটনা জেলেদের জালে দরা পরলো টুনা মাছের এক বিশাল জাক । ৫মিনিটে বড়ে গেলো সব গোলা নৈাকা ভাইরল ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন:আমরা অনেকেই মাছ ধরতে খুব পছন্দ করি। বাঙ্গালীদের মধ্যে অনেকেপেশা আবার অনেকের নেশাও বটে। …