Breaking News

আগামী তিনদিনের বৃষ্টিতে ২ থেকে ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রা নামতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে

গত দুই দিনের বৃষ্টিতে বঙ্গবাসী আপাতত স্বস্তি পেয়েছে বৈশাখের দাবদাহ থেকে। সকালের দিকে প্যাচপ্যাচে গরমের জায়গায় ঠাণ্ডার শিরশিরানি অনুভব হচ্ছে কলকাতাসহ সংলগ্ন এলাকাগুলিতে। শনিবারের পর ফের গতকাল, রবিবার রাতের দিকে কলকাতা এবং দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বজ্রবিদ্যুৎসহ বৃষ্টিপাত হয়েছে।

সেই সাথে বয়েছিল ঝোড়ো হওয়া। মহানগরে প্রায় ৬৯ কিলোমিটার বেগে ঝড় হয়েছিল। বৃষ্টিতে ভিজেছে কলকাতার পাশাপাশি আরও কিছু জেলা। আর সেই সুবাদেই তীব্র দহনজ্বালা থেকে মুক্তি পেয়েছে দক্ষিণ বঙ্গবাসী। তবে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে যে এখানেই ঝড় বৃষ্টির শেষ নয়।

আজও বিকেলের পর কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। আবহাওয়া দপ্তর অনুযায়ী আজ অর্থাৎ সোমবারে বৃষ্টিতে ভিজবে উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, কলকাতা, হাওড়া, হুগলি, পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝড়গ্রাম, মুর্শিদাবাদ, নদীয়া, বীরভূম ইত্যাদি জায়গা। বৃষ্টির সাথে গতকালের মতই ৫০-৬০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা বেগে ঝড় হতে পারে।

বৃষ্টির ফলে ইতিমধ্যেই দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে কিছুটা তাপমাত্রার পারদ নেমেছে। এরপর আগামী তিনদিনে আরও ২ থেকে ৪ ডিগ্রি তাপমাত্রা নামতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। আজ অর্থাৎ সোমবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস। আসানসোলের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বর্ধমানের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রী সেলসিয়াস। আজকের বৃষ্টির পর এই তাপমাত্রার পারদ আরেকটু নামতে পারে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিতেও বজ্রবিদ্যুৎসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস জারি করেছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর। আজকে দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, মালদা এবং আলিপুরদুয়ারে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টির সাথে কোথাও কোথাও ৩০-৪০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো বাতাস বইতে পারে। জানিয়ে রাখি, আজ কোচবিহারের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩০.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং মালদার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস।

Check Also

বাড়তে পারে উষ্ণতার পারদ, ঘূর্ণিঝড়ের কতটা প্রভাব পড়বে বাংলায় উপর!

সম্প্রতি আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন বঙ্গোপসাগরে তৈরি হচ্ছে ঘূর্ণিঝড় অশনি। দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া সেই ঘূর্ণিঝড় আস্তে …