Breaking News

আপনার সন্তানের হাতের লেখা সুন্দর করার সহজ কিছু টিপস!

সন্তানের হাতের লেখা নিয়ে বাবা-মায়ের চিন্তার শেষ নেই। সহজ কিছু টিপস জানা থাকলে সহজেই এই চিন্তা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। সুন্দর একটি অক্ষর লিখে তার ওপর শিশুকে হাত ধরে ঘুরিয়ে লেখালেও অক্ষরের আকার সম্পর্কে ধারণা সুস্পষ্ট হয়। আসুন জেনে নেই সন্তানের হাতের লেখা সুন্দর করার কিছু টিপস…

সোনামনির খাতায় প্রথমত এক লাইন সুন্দর করে অক্ষর লিখে দিতে হবে। ওটা দেখে লাইন ধরে লেখার অভ্যাস করবে। প্রত্যেকটি অক্ষরের স্টাইল কেমন হবে তা আপনি ঠিক করে দিন। শিশু সেটা দেখে রপ্ত করবে। বড়রাও পছন্দের কোনো লেখা দেখে প্রতিটি অক্ষরের স্টাইল ঠিক করে নিতে পারেন। এতে লেখা সুন্দর হবে।

এক অক্ষর থেকে আরেক অক্ষরের মাঝে এক ইঞ্চি ফাঁকা রাখার অভ্যাস করাতে হবে। এতে লেখা ভালো দেখায়। বায়ে এবং ওপরে সোয়া ১ ইঞ্চি ফাঁকা রাখলে হাতের লেখা সুন্দর দেখায়। বাচ্চাদের খাতার পুরো লাইন ভরে লাগানো উচিত। প্রতিটি বর্ণ যেন সমান হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

বাচ্চাদের লেখার সময় কলম বা পেন্সিল ধরাটা ঠিকভাবে শেখাতে হবে। পেন্সিলের শীষ থেকে এক ইঞ্চি দূরত্বে ধরলে লেখা ভালো হবে। সঠিক উচ্চতার চেয়ার টেবিলে বসে লিখলে লেখা সুন্দর হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে বর্ণগুলো সোজা করে লিখতে হবে।

তিনকোনা বর্ণগুলো সবচেয়ে সোজা। আগে সে অক্ষর গুলো থেকে লেখা অনুশীলন শুরু করতে পারে। যেমন- ব,ক। খাতায় বর্ণের আকারে ফোটা দিয়ে দিন। শিশুকে তার ওপর হাত ঘুরিয়ে বর্ণ লেখা অনুসরণ করান। তাহলে তার জন্য বেশি সহজ হবে।

সবার আগে প্রয়োজন শিশুকে অক্ষর চেনানো। এখন না চিনলে সে লিখতে পারবে না। সঙ্গে সঙ্গে কোন অক্ষরে মাত্রা নেই, কোনটাতে অর্ধমাত্রা সেটিও মুখস্ত করিয়ে দিন। কোন বর্ণের মাত্রা আছে, কোনটাই অর্ধমাত্রা ইত্যাদি ভালোমতো জেনে সে অনুযায়ী অনুশীলন করাতে হবে। লেখা আপনিতেই সুন্দর হবে। সাদা খাতায় শিশুকে উপর থেকে নিচের লাইন টানতে দিন। এতে শিশুর খাতার দিকে মনোযোগ দেয়ার অভ্যাস তৈরি হবে।

Check Also

শখের বসে করা ছাগলের খামারে তিন বছরে ১৫ লাখ টাকার বাজিমাত!

নিজস্ব প্রতিবেদন: নাম শিবলী নোমান। ২০০১ সালে এসএসসি পাশের পর নানা প্রতিবন্ধকতায় বন্ধ হয়ে গেল …