Breaking News

‘আরআরআর’-এর ভিলেন বাস্তবে কে, রইলো বিখ্যাত হলিউড অভিনেতার আসল পরিচয়

এস এস রাজামৌলি পরিচালিত ‘আর আর আর’ ছবিটি গত ২৫শে মার্চ মুক্তি পেয়েছে। মুক্তি পাওয়ার পরপরই ব্লকবাস্টার হওয়ার পথে ধাপে ধাপে এগিয়েছে এই দক্ষিণী ছবি। সারা পৃথিবী জুড়ে হাজার কোটি টাকারও বেশি ব্যবসা করে ফেলেছে জুনিয়র এনটিআর এবং রামচরণ অভিনীত সিনেমাটি। নজর কেড়েছেন আলিয়া ভাট, অজয় দেবগনের মত বলিউড অভিনেতারাও। তাদের সঙ্গেই নজর কেড়েছেন এক ব্রিটিশ অভিনেতা, রে স্টিভেনসন।

ছবিতে একজন অত্যাচারী ব্রিটিশ অফিসারের ভূমিকায় অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে রে’কে। হাড়ে হিম ধরানো তার অভিনয়ে ফুটে উঠেছে নৃশংসতা। দক্ষিণী ছবিতে খলনায়কের ভূমিকায় অভিনয় করলেও তিনি হলিউড ইন্ডাস্ট্রির একজন সুপরিচিত অভিনেতা। তার চেহারা এবং অভিনয়গুণে তিনি নজর কেড়েছেন ইন্ডাস্ট্রিতে। আদতে এই অভিনেতা আয়ারল্যান্ডের বাসিন্দা।

১৯৬৪ সালে আয়ারল্যান্ডে জন্ম রে স্টিভেনসনের। তার বাবা ছিলেন বিমানবাহিনীর পাইলট। রে ছাড়া তার পরিবারে তার একজন বড় এবং ছোট ভাইঅ আছে। একবার একটি সাক্ষাৎকারে অভিনেতা জানিয়েছিলেন, তার বয়স যখন মাত্র ৪ বছর, তখন তার পুরো পরিবার আয়ারল্যান্ড ছেড়ে ইংল্যান্ডে চলে যায়। ওইটুকু বয়স থেকেই অভিনয়ের প্রতি তার আগ্রহ জন্মায়। সেই সময় কর্মজীবী অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের মর্নিং পিকচার্স শোতে রেখে যেতেন।

শিশুরা সেখানে সারাদিন বিভিন্ন ধরনের সিনেমা দেখে সময় কাটাতো। রে স্টিভেনসনও ওইভাবেই সিনেমা দেখতেন। সিনেমা দেখতে দেখতেই অভিনয়ের প্রতি তার প্রবল আগ্রহ জন্মায়। স্কুল যাওয়ার বয়স থেকেই পড়াশোনার পাশাপাশি সিনেমা এবং থিয়েটারে কাজ করতে শুরু করেন তিনি। পড়াশোনা শেষ করে তিনি যোগ দেন ইন্টেরিয়র ডিজাইনারের পেশায়। তবে অভিনয় জগতে তার কেরিয়ার শুরু হয়েছিল বেশ মজাদারভাবে।

অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী এক বন্ধুর সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন রে। সেই বন্ধু ছিলেন পেশায় একজন অভিনেতা। দুই বন্ধু আড্ডা দিতে দিতে মদ খাচ্ছিলেন। এই সময় মনের ইচ্ছে বন্ধুর সামনে অকপটে খুলে বলেন রে। বন্ধুর মনের খবর জেনে রে’র বন্ধু তাকে অভিনয় ক্লাসে যোগ দেওয়ার পরামর্শ দেন। ব্যাস, এরপর চাকরি করতে করতেই তিনি অভিনয় ক্লাস নিতে শুরু করেন।

এক বছর পর চাকরি ছেড়ে পুরোপুরি অভিনয়ে মনোনিবেশ করেন তিনি। ১৯৯৮ সালে ‘দ্য থিওরি অফ লাইট’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছিলেন রে। তারপর আর তাকে ঘুরে তাকাতে হয়নি। ১০ বছর অবশ্য সহ-অভিনেতা হিসেবে ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে ছিলেন তিনি। তবে ২০০৮ সালে ‘আউটপোস্ট’ ছবিতে মুখ্য চরিত্রাভিনেতা হিসেবে অভিনয়ের সুযোগ পান।

এরপর রেস্ট ম্যানশন মার্ভেলের ফার্নিচার চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছিলেন। এই ছবির পর তার নাম ডাক চারিদিকে ছড়িয়ে পড়ে। মার্বেলের ‘থর’ সিরিজের চলচ্চিত্রে ওলস্ট্যাগের ভূমিকাতেও নজর কেড়েছেন এই অভিনেতা। ব্রিটিশ অফিসার হিসেবে এস এস রাজামৌলি তাকেই নির্বাচন করেন।

Check Also

বিয়ের প্রস্তাবে সাড়া দিলেন তামান্না!

ভারতীয় সিনেমায় এই সময়ের অন্যতম ব্যস্ত অভিনেত্রী তামান্না ভাটিয়া। দক্ষিণের তামিল-তেলেগু থেকে উত্তরের বলিউড, সবখানেই …