Breaking News

এই পদ্ধতি মেনে পেয়ারা চাষ করলে চারা গাছেই ধরবে পেয়ারা। ফলন ও হবে ভালো। রইল স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি

নিজস্ব প্রতিবেদন:স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় পেয়ারা রাখা উচিত।পেয়ারাতে আছে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট,ভিটামিন ‘সি’ ও লাইকোপেন—যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই দরকারি। এ ছাড়া এ ফলে বিভিন্ন খনিজ পদার্থ, স্নেহ, শর্করা ও প্রোটিন রয়েছে।

আর আজ দেখবো ছাদের টবে পেয়ারা চাষ পদ্ধতি।আমলকির পরে পেয়ারাতেই সবচেয়ে বেশী ভিটামিন সি বিদ্যমান।অনেকের পছন্দের ফল হওয়াতে গ্রামে গঞ্জে, আনাচে কানাচে সর্বত্রই পেয়ারার চাষ লক্ষ্য করা যায় ।আমাদের আজকের আলোচনা ছাদের টবে পেয়ারা চাষ নিয়ে।ছাদের টবে পেয়ারা চাষ পদ্ধতি নিয়ে অনেকে জানতে চেয়েছেন।

ছাদের টবে পেয়ারা চাষ খুব জটিল কোন বিষয় না তবে সতর্কতা আবশ্যক।টবে কোন জাতের পেয়ারা চাষ করতে চান?বাংলাদেশে প্রাপ্ত সকল জাতের পেয়ারাই ছাদেও চাষ করা যায় । কিছু জাতের পেয়ারার কদর একটু বেশি এর সুমিষ্টতা এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশির কারনে।

পেয়ারার উল্লেখ্য যোগ্য জাতের এর মধ্যে রয়েছে-
বাউ পেয়ারা-১ (মিষ্টি),
এফটিআইপি বাউ পেয়ারা-৪ (আপেল),
বাউ পেয়ারা-৫ (ওভাল),
এফটিআইপি বাউ পেয়ারা-৬ (জেলি) এবং থাই পেয়ারা।

এছাড়াও ইপসা -১ এবং ইপসা -২ পেয়ারাও ভাল জাতের পেয়ারা।ছাদের টবে পেয়ারা চাষ পদ্ধতিঃ পেয়ারার গাছের টবে পানি জমে থাকলে পেয়ারা চাষ এখানেই শেষ। এ জন্য একটি ২০ ইঞ্চি ড্রাম নিয়ে ড্রামের তলায় ৩-৫ টি ছিদ্র করে নিতে হবে । যাতে গাছের গোড়ায় পানি জমে না থাকে।

টব বা ড্রামের তলার ছিদ্রগুলো ইটের ছোট ছোট টুকরা দিয়ে বন্ধ করে দিতে হবে ।সংক্ষেপে এখানে আলোচনা হিসাবে ২ ভাগ বেলে দোআঁশ মাটি, ১ ভাগ গোবর, ৪০-৫০ গ্রাম টি,এস,পি সার এবং ৪০-৫০ গ্রাম পটাশ সার দিয়ে ড্রাম বা টব ভরে নিতে হবে।উপরোক্ত নিয়মের মাটি পানি দিয়ে ১০-১২ দিন ভিজিয়ে রেখে দিতে হবে।

অতঃপর মাটি কিছুটা খুচিয়ে দিয়ে আবার ৪-৫ দিন এভাবেই রেখে দিতে হবে যাহাতে টবের মাটি শুকিয়ে যায় ।মাটি শুকিয়ে ঝুরঝুরে হবে তখন একটি সবল সুস্থ চারা উক্ত টবে রোপন করতে হবে ।
চারা রোপনের সময় খেয়াল রাখতে হবে গাছের গোড়া যেন মাটি থেকে আলাদা না হয়ে যায়, গাছের গোড়ায় মাটি কিছুটা উচু থাকে এবং চারা গাছটিকে সোজা থাকে।

চারা লাগানোর পর লক্ষ্য রাখতে হবে যেন গাছের গোড়ায় পানি জমে না থাকে।তবে গাছেরগোড়া শুকিয়ে গেলে অল্প পরিমানে পানি দিতে হবে । কখনই বেশী পরিমানে পানি দিয়ে স্যাঁত স্যাঁতে অবস্থায় রাখা যাবে না।গ্রীষ্মকালে গাছ যাতে বেশী শুকিয়ে না যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

প্রয়োজন হলে গ্রীষ্মকালে সকাল বিকাল দুই বেলা করে পানি দিতে হবে।ছাদের টবে পেয়ারা চাষে পরিচর্যা।ছাদের টবে পেয়ারা চাষে রোগবালাই দমন পদ্ধতি।পেয়ারা গাছের পাতা শুকিয়ে গেলে করনীয়।পেয়ারা গাছে ফল আসার আগে করনীয়

পেয়ারা গাছের পাতা নতুন হলে অনেক সময় দেখা যায় পোকা এগুলোকে ফুটো করে ফেলে। যার ফলে ফলন ব্যাঘাত ঘটে এই সমস্যা থেকে মুক্তির জন্য প্রতি ১০ লিটার পানিতে ১০ গ্রাম পরিমাণ ডেরিস,বা ২০ গ্ৰাম ডারবাসন ব্যবহার করতে হবে।

পেয়ারা গাছের পাতা শুকিয়ে গেলে করনীয়এই সমস্যা সাধারণত ছত্রাক এর কারনে হয়। প্রতিকার হিসেবে ব্যভিসটিন ঔষধ টি এক লিটার পানিতে এক গ্ৰাম পরিমাণে মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে।
পেয়ারা গাছে ফল আসার আগে করনীয়পেয়ারা গাছে ফুল আসার আগে রিপকরড/ ভেজিম্যাক্স সঠিক মাত্রায় ব্যবহার করতে হবে।বাগান করুন সুখি ও সুস্থ থাকুন।

Check Also

অভিনব পদ্ধতিতে এক পিলারের উপর দুই তালা বিল্ডিং করলেন এই দম্পতি । অদ্ভুত এই বাড়ি দেখতে প্রতিদিন ভিড় করে হাজার হাজার মানুষ। তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন:প্রকৌশলীরা হলেন দক্ষ প্রযুক্তিবিদ । গাণিতিক ও বৈজ্ঞানিক জ্ঞানের প্রয়োগ ঘটিয়ে ব্যবহারিক সমস্যার নিরাপদ …