Breaking News

বাংলার মানুষের জন্য সুখবর! পুজোর আগেই রাজ্যের বহু মানুষের একাউন্টে ঢুকবে টাকা

আজ পিতৃপক্ষ শেষ হয়ে দেবীপক্ষের সূচনা ঘটল। হাতে গুনে আর মাত্র কয়েকটি দিন আর তারপরেই মা দুর্গা আসতে চলেছে তার নিজের বাড়ি। আর সেই খুশিতে ভাসতে চলেছে সকলেই। ইতিমধ্যেই কেনাকাটায় মেতে উঠেছেন সকলে। তবে প্রতিটি জিনিসের চড়া দামে নাজেহাল সাধারণ মানুষ। তবে সকলের পুজো ভালোভাবে কাটাতে সরকার গ্রহণ করেছে নয়া দশটি পদক্ষেপ। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি কর্তৃক নেওয়া এই জনপ্রকল্পগুলির মাধ্যমে বাংলার মানুষ পাবেন আর্থিক সুবিধা।

বাংলার দুর্গাপূজা সম্প্রতি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের আখ্যা পেয়েছে। আর সেই খুশিতে দুর্গাপুজোকে সকলের কাছে আরও মধুর করে তুলতে সরকার গ্রহণ করেছেন একাধিক জনপ্রকল্প। ইতিমধ্যে বাংলার বহু প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের একাউন্টে পৌঁছে গিয়েছে টাকা এবং পুজোর আগেই বোনাস দেবার পরিকল্পনা করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে।

বর্তমানে বাংলা আর্থিক সংকটের মধ্য দিয়ে গেলেও প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বাংলার প্রায় 43 হাজার পুজো কমিটির হাতে মমতা ব্যানার্জি তুলে দিয়েছেন 60 হাজার টাকা করে অনুদান। তার পাশাপাশি তিনি আশ্বাস দিয়েছেন এই উৎসবে বিদ্যুৎ বিলে মোটা অঙ্কের ছাড় দেবার। যদিও এই বিষয়ে এখনও সঠিকভাবে কিছু জানা যায়নি।

রাজ্য কর্মচারীদের নিয়ে একাধিক পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন রাজ্য সরকার। এবার পুজো অক্টোবর মাসের প্রথম দিকে হওয়ার দরুন সকলকে পয়লা তারিখের দুদিন আগেই মাইনে দেবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। 28 শে সেপ্টেম্বর তারিখ নাগাদ আগাম বেতন পেয়ে যাবেন রাজ্য কর্মীরা। অন্যদিকে অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের ক্ষেত্রেও আগাম পেনশন দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। তাদের 29 তারিখের মধ্যে পেনশন হবার কথা জানা গেছে।

অন্যদিকে নবান্নের তরফ থেকে জানা গেছে পূজা উপলক্ষে একেবারে টানা 10 দিন ছুটির ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। অন্যদিকে কালীপুজো, ভাইফোঁটাতেও মিলবে ছুটি। সবমিলিয়ে অক্টোবর মাসের প্রায় 15 দিন মত ছুটি পেতে চলেছেন রাজ্যসরকার কর্মীরা। সব মিলিয়ে রাজ্যবাসীর উৎসবে ভালোভাবে কাটাতে বদ্ধপরিকর রাজ্যসরকার।

Check Also

এক দোকানদার রাতে দোকান বন্ধ করতে যাচ্ছিল এমন সময় একটা কুকুর মুখে করে বাগ নিয়ে আসলো বাগে ছিল ১টি লিষ্ট আর টাকা, তার পরঃ

রাতের বেলা এক দোকানদার নিজের দোকান বন্ধ করতে যাচ্ছিল, এমন সময় একটি কুকুর দোকানে আসল। …