Breaking News

বিলের জল শুকিয়ে যাওয়ায় অল্প পানির মধ্যে আটকে গেল প্রচুর পরিমাণে বোয়াল মাছ। আর সেই সুযোগে দুই যুবক কোচ দিয়ে ধরল সেই মাছ দেখুন বিস্তারিত

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাঙ্গালীদের মধ্যে মাছ ধরতে পছন্দ করে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর ।মাছে ভাতে বাঙালিরা যেমন মাছ খেতে পছন্দ করে তেমনি মাছ ধরতেও পছন্দ করে।তবে যদি এমন হয় যে খুব অল্প পানিতে অনেকগুলো বোয়াল মাছ আটকে গিয়েছে। এবং তা ধরার মতো আপনার কাছে পর্যাপ্ত পরিমাণ সরঞ্জাম রয়েছে। ঠিক সেই মুহুর্তে আপনার অনুভূতিটা কেমন হবে।কিন্তু আমি হলে দৌড়ে চলে যেতাম মাছগুলো ধরতে।

সেই বড় বড় মাছের লোভ যেন কেউ সামলাতে পারবে না। ঠিক তেমনি এই বড় বড় মাছের একটি ভিডিও করেছিলেন সে গ্রামের একটি ছেলে। ভিডিওটি ইন্টারনেটে আপলোড করে দেন।সেই ভিডিও ধারণ করে ইন্টারনেটে দিলে এটি ইন্টারনেটের বদৌলতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তুমুল ভাবে ছড়িয়ে পড়ে। রাতারাতি সে ধারণকৃত ভিডিওটি হয়ে যায় ভাইরাল।

সাথে সাথে ভাইরাল হয়ে যায় সে গ্রামের কিশোর গুলো যারা ওই ডোবায় কোচ দিয়ে মাছ ধরেছেন। তাদের মাছ ধরার কায়দা ছিল অভাবনীয়। তারা সাধারণ কোচ দিয়ে বড় বড় রাগব বোয়াল ধরে। তারা অদ্ভুতভাবে এত বড় মাছ ধরছে। সাধারণ কায়দায় মাছগুলো শিকার করেছে। তাদের এমন কায়দা কি করে মাছ ধরে তা ভাবাচ্ছে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের। তারা সবাই এইভাবে এদের মাছ ধরতে দেখে অনেকটাই চমকে যাচ্ছে।

তারা অবাক হয়ে তাদের প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছে। তারা কিভাবে এমন কায়দায় মাছ ধরতে পারে তা অনেকের কাছে প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকে ভাবছে তারা কিভাবে করছে এসব কায়দায় কিভাবে এ কায়দা করে মাছ ধরতে পারছে তারা সবাই বিস্মিত হয়ে আছে। বিস্মিত সবার একই প্রশ্ন তারা কিভাবে পারছে এভাবে মাছ ধরতে। এটি একটি দীর্ঘ বর্শার মত যন্ত্র, যা মাছ শিকারে ব্যবহৃত হয়। মাছের উপর বেশ খানিকটা দূর থেকে টার্গেট করে টেটা নিক্ষেপ করে শিকার করা হয়।

বাংলাদেশের বিভিন্ন বিলে প্রতিবছর আষাঢ় থেকে ভাদ্র মাস পর্যন্ত যেসব যন্ত্র দিয়ে মাছ ধরা হয়, তার মধ্যে কোঁচ অন্যতম। বর্শা জাতীয় দশ-পনেরোটি অগ্রভাগ তীক্ষ্ণ ধারালো গোলাকার লোহার টুকরো বাঁশের চোখা অগ্রভাগগুলোর মাথায় পরিয়ে দিয়ে কোঁচ বানানো হয়। দূর থেকে নিক্ষেপযোগ্য করার জন্য অপর একটি বাঁশের সাথে এ অংশ জোড়া দেওয়া হয়। মাছ শিকারীরা দূর থেকে মাছ ধরার এ যন্ত্র মাছকে লক্ষ্য করে নিক্ষেপ করে ঘায়েল করে বড় বড় মাছ শিকার করেন। অনেকে লোহার অগ্রভাগে কালা বা আল তৈরি করে নেন।

যেন কোঁচ এককাঁটা বা তেকাঁটায় বিদ্ধ হওয়া মাছ ছুটে যেতে না পারে। মাছ ধরার আধুনিক অনেক উপকরণ বা যন্ত্র আবিষ্কার হলে কোঁচের ব্যবহার অনেক কমে এলেও এর আবেদন এখনো ফুরিয়ে যায়নি। এটি আমাদের প্রাচীনকালের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। আজকের এই ভিডিওটিকে দুটি ছেলে কোচ নিয়ে যায় বিলের ধারে। তারা গিয়ে দেখতে পেল বিলের পানি শুকিয়ে একদম কমে গিয়েছে। এবং সেখানে অনেকগুলো বড় বড় বোয়াল মাছ নড়াচড়া করছে। তা দেখে তারা দেরি না করে দুজনেই নেমে গেল মাছ ধরতে।

এবং মুহূর্তের মধ্যেই অনেকগুলো বোয়াল মাছ ধরতে সক্ষম হয় তারা। তা ভিডিও করে ইন্টারনেটে আপলোড করার সাথে সাথে মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়। বাঙালিরা বর্তমানে কর্মব্যস্ততার কারণে মাছ ধরা হয় উঠে না। তবে মাঝেমধ্যে ইউটিউব কিংবা বিভিন্ন গণমাধ্যমে এই মাছ ধরার ভিডিও গুলো দেখতে মনে পড়ে যায় পুরনো দিনের স্মৃতিগুলো কথা। আজকের এই ভিডিওটিতে কিভাবে মাছ ধরা হয়েছে তা দেখতে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন।

বিস্তারিত ভিডিওতে দেখুনঃ

Check Also

ডুবার পানি শুকিয়ে যাওয়ায় আটকে গেল বড় মাছ, তিন বালক দারুন কায়দা করে ধরল, ভাইরাল সেই ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রাচীনকাল থেকেই বাঙালি জাতি কে মাছে ভাতে বাঙালি বলা হয়। বাঙালি মাছ খেতে …