Breaking News

বিশ্বকাপে প্রতিপক্ষ দলের 11 জনকে গোলকিপার বানিয়ে যেভাবে গোল দিলেন ব্রাজিলের সুপারস্টার রোনালদিনহো। বিশ্বকাপের সেই খেলাটি এখন তুমুল ভাইরাল নেটপাড়ায়।

নিজস্ব প্রতিবেদন:ফুটবল আবিষ্কৃত হয়েছে প্রায় কয়েকশ বছর হয়ে গেছে !! এই কয়েকশ বছরে ফুটবলে যে কত ধরনের খেলোয়ার এসেছে আর গেছে এটার হিসাব করাটা একটা দুঃসাধ্য ব্যাপারই বটে ! এদের মধ্যে কেউ বনে গেছে লিজেন্ড যাদেরকে ফুটবল প্রেমীরা মনে রেখেছে কিছু দিনের জন্য ! আবার কিছু খেলোয়ার বনে গেছে সর্বকালের সেরা যাদের আজও ফুটবল প্রেমীরা ভুলতে পারেনি !

আবার এমন বহু খেলোয়ার আছে যাদের নামও হয়ত কারো মনে নেই ! কিন্তু সময়ের স্রোতের মত ফুটবলের প্রজন্মও যেন ধারাবাহিক ভাবে চলছে !!আর এই সব খেলোয়ারদের মধ্যে রোনালিনহো একটি বেশ পরিচিত নাম ! ব্রাজিলের পোর্তো এলেগ্রি নামক এক শহরে 1980 সালে জন্মেছিল রোনালদো দি এসিস মোরেইরা নামের এক বিষ্ময় বালক !

কেউ কি তখন ভেবেছিল যে এই ছেলে একদিন পুরো বিশ্ব কাপাবে ? মনে হয় না ! তার বাবা ছিল একজন লোকাল এরিয়ার ফুটবলার ! হয়ত ভেবেছিলেন তিনিও এরকমই একজন হবেন ! কিন্তু তিনি যে অন্যরকম অর্থাত অনেকের মধ্যে একজন অন্যতম তার পরিচয় দিয়েছিলেন মাত্র আট বছর বয়সেই ! তারপর তের বছর বয়সে নিজের ক্যারিয়ারের প্রথম ম্যাচেই নিজে একাই 23টি গোল করে প্রতিপক্ষকে 23-0 গোলে বিধ্বস্ত করা তো ছিল এক অন্যতম নজির!

ফুটবল কি ? একটা খেলা ! গোল করা আর খেলা জেতা ! তাইতো ! মনে হয় না ! ফুটবল ইজ মোর দ্যান এ গেম এটা মনে হয় শিখিয়েছিলেন রোনালদিনহোই ! কারন বল পায়ে নিয়ে যে শুধু গোল ছাড়াও যে আরো বহু কিছু করা যায় এটা তিনিই মনে হয় বিশ্ববাসিকে দেখিয়েছিলেন ! তার পা দুটোকে যদি ম্যাজিক ফিট আর তাকে যদি ফুটবলের ম্যাজিশিয়ান বলে আখ্যা দেই তাহলে মনে হয় কোন ভুল হবে না !

ফুটবলে তো কত খেলোয়ারই অসাধারন স্কিলের পরিচয় দিয়েছেন ! আমরা পেলে-ম্যারাদোনার নাম শুনেছি !! কিন্তু রোনালদিনহো ছিলেন এদের থেকে অন্যতম ! তাদেরকে এক পাল্লায় মাপাটা খুবই জটিল বিষয় ! বল পায়ে যখন রোনালদিনহো থাকতেন তখন মনে পুরো বিশ্বের ফুটবল প্রেমীরা তার পায়ের দিকে এক নজরে তাকিয়ে থাকতেন ! তার অসাধারন বল কন্ট্রোলিং ও স্কিল এমন কোনো ফুটবল প্রেমী নেই যাকে মুগ্ধ করেনি !

আর ডিফেন্ডারদের জন্য ছিলেন তিনি এক ভয়েরই কারন ! এর কারনটা হল বল নিয়ে তিনি আসলে কি করতে যাচ্ছেন কিংবা কি করবেন এটা বলাটা কিংবা বোঝাটা ছিল খুবই জটিল ব্যাপার ! মাঝ মাঠ থেকে সকল ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে গোল করার ক্ষেত্রে তিনি একাই ছিলেন যথেষ্ট !আসলে লিখতে লিখতে অনেক বড় হয়ে গেল ! তার সম্পর্কে যাই লিখি না কেন সবই ছোট !

কারন তার সম্পর্কে যদি বিস্তারিত লিখতে যাই তাহলে উপান্যাস রচিত হয়ে যাবে ! আর আমি কবি হতে চাই না !!তাই শেষ মূহুর্তে বলতে বাধ্য হচ্ছি —–রোনালদিনহো সেইসব কিংবদন্তিদের একজন, যারা কখনোই মানুষের মন থেকে হারিয়ে যাবেননা।

যখনই কথা উঠবে শিল্পীত ফুটবল আর ফুটবলের জাদুকরী পায়ের কাজ প্রসংগে তখনি শ্রদ্ধাভরে পেলে, ম্যারাডোনা, পুসকাস, জার্ড মুলার, গ্যারিঞ্ছা, ক্রুইফদেরসাথে উচ্চারিত হবে রোনালদিনহো গাউচোর নাম।

Check Also

বিদেশী জাতের এই ময়ূর পালন করে, রাতারাতি লাখপতি হয়ে গেলেন সুন্দরী যুবতী। রইল ভিডিও সহ ময়ূর পালনের যাবতীয় গোপন টিপস।

নিজস্ব প্রতিবেদন:প্রাচীনকাল থেকেই সুস্বাদু মাংস হিসেবে পরিগণিত হয়ে আসছে পাখির মাংস। এরই ধারাবাহিকতায় আধুনিক যুগের …