Breaking News

বেলজিয়াম জাতের গরু শিকার করতে এসে বিপদে বনের রাজা সিংহ। এক আঘাতে মাটিতে লুটিয়ে পড়ল সিংহ। যা দেখে বিস্মিত নেটদুনিয়ায়। তুমুল ভাইরাল ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন:বেলজিয়ান ব্লু গরুর ওজন হয় গড়ে কমপক্ষে ৮০০ কেজি। বাংলাদেশি জাতের গরুগুলোর চেয়ে বেলজিয়ান ব্লুর ওজন গড়ে অন্তত ৫ গুন বেশি। আর বেলজিয়ান ব্লু ষাড়েঁর ওজন হয় গড়ে কমপক্ষে ১ হাজার ১০০ থেকে ১২৫ কেজি পর্যন্ত।

বেলজিয়ান ব্লু জাতটি ষাটের দশকে মধ্য বেলজিয়াম ও বেলজিয়ামের ওপরের দিককার অঞ্চলে প্রথম বিকাশ লাভ করে।বিশ্বের অন্যতম গরু উৎপাদনকারী দেশ হল বেলজিয়াম। দেশটির অন্যতম বা বিখ্যাত গরুর জাতের নাম হচ্ছে “বেলজিয়ান ব্লু” বা নীল গরু। নানা নামেই ডাকা হয় এ গরুকে।

যেমন “হোয়াইট ব্লু” “ব্লু হোয়াইট”, ”হোয়াইট ব্লু পাউন্ড” সহ আরো অনেক নামে। গরুটির নাম আসলে গরুর গায়ের রঙের উপর নির্ভর করে। গরুতে সাদা রঙের আধিক্য বেশি হলে নাম হয় হোয়াইট ব্লু কাউ। নীল রঙের আধিক্য হলে নাম হয় ব্লু ব্ল্যাক।বেলজিয়ান ব্লু গরুর ওজন হয় গড়ে কমপক্ষে ৮০০ কেজি।

বাংলাদেশি জাতের গরুগুলোর চেয়ে বেলজিয়ান ব্লুর ওজন গড়ে অন্তত ৫ গুন বেশি। আর বেলজিয়ান ব্লু ষাড়েঁর ওজন হয় গড়ে কমপক্ষে ১ হাজার ১০০ থেকে ১২৫ কেজি পর্যন্ত।বেলজিয়ান ব্লু জাতটি ষাটের দশকে মধ্য বেলজিয়াম ও বেলজিয়ামের ওপরের দিককার অঞ্চলে প্রথম বিকাশ লাভ করে।

ডাবল মাসলিং বৈশিস্ট্যের জন্য দ্রুতই বিখ্যাত হয়ে ওঠে এই জাত। এই বিশাল গুরুতে রয়েছে থরে থরে মাংসপেশি। এর পিঠে কুঁজ নেই্। একদম সমান। জন্মের তিন বছরের ভেতর এর ওজন বেড়ে দাঁড়ায় ৭৫০ কেজি।
তাহলে বুঝাই যাচ্ছে এত বড় একটি বেলজিয়াম গরুর সামনে খুব সহজেই পরাস্ত হতে হলো বনের রাজা সিংহকে।

সিংহ এটি বোনের ভয়ংকর একটি প্রাণী যে কোন প্রাণীকে তারা সহজে শিকার করে কিন্তু কখনো কখনো আবার তারা নিজেও স্বীকার হয় যায় অন্য প্রাণির।সিংহ (Panthera leo) ফেলিডি পরিবারের প্রাণী যা প্যানথেরা গণের চারটি বৃহৎ বিড়ালের মধ্যে আকারে এটির অবস্থান দ্বিতীয়। সিংহের মূলত দুটি উপপ্রজাতি বর্তমানে টিকে আছে।

একটি হল আফ্রিকান সিংহ অপরটি হল এশীয় সিংহ।সিংহ বনের রাজা। এরা অরণ্যে রাজ করে থাকে। সিংহ খুব ভয়ঙ্কর একটি প্রাণী। এটি বনের সবচাইতে ভয়ঙ্কর প্রাণী হিসেবে চিহ্নিত। সিংহকে বনের রাজা বলা হয় কারণ সিংহ খুব অলস প্রকৃতির একটি প্রাণী। সে সবসময় চায় অন্যের শিকার করা খাবার ছিনিয়ে নিয়ে খেতে।

তবে মাঝেমধ্যে যখন তারা বেশি ক্ষুধার্ত হয়ে যায় তখন আবার বিভিন্ন শিকারের পেছনে ধাওয়া করে।এবং এভাবেই তারা জীবন ধারণ করে তবে কিছু কিছু সময় খুব নিরীহ প্রাণী গুলোও এই ভয়ঙ্কর প্রাণী সিংহ কে ফাঁকি দিয়ে জীবন বাঁচিয়ে নেয়।জীবন বাঁচানোর জন্য এই চেষ্টাটুকু প্রত্যেকেই করা প্রয়োজন। কেননা বর্তমানে দুনিয়াতে বাঁচতে হলে লড়াই করে বাঁচতে হবে। সে হোক কোন প্রাণী বা হোক মানুষ।

Check Also

সমুদ্রের নীল তিমি কত টা ভয়ংকর হয়! সমুদ্র থেকে লাফ দিয়ে বক শিকার করে নেয় নীল তিমি,নেট দুনিয়াই ভাইরাল সেই ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন: মানুষ সামাজিক জীব।প্রাকৃতিক পরিবেশের মধ্যে সে জন্মে এবং সেখানেই বড় হতে থাকে।ফলে প্রকৃতির …