Breaking News

মুকেশ আম্বানি নিজের পকেটে মানিব্যাগে কত টাকা রাখেন? এই তথ্য অবাক করবে আপনাকে

রিলায়েন্স জিওর কর্ণধার মুকেশ আম্বানি, তার প্রতিপত্তির কথা কারোরই অজানা নয়। ভারতের সবথেকে ধনী ব্যক্তি মুকেশ আম্বানি এটা সবারই জানা। শুধু ভারতেই না, সমগ্র বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম হলেন তিনি। ব্লুমবার্গ বিলিয়নিয়ার ইনডেক্স অনুযায়ী বিশ্বের ধনীদের মধ্যে ১১ নম্বর স্থানে রয়েছেন মুকেশ আম্বানি। জানা গেছে যে মুকেশ আম্বানি গ্রুপের মোট সম্পত্তির অর্থমূল্য হলো ৭৯.২ বিলিয়ান অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৫.৭৮ লক্ষ্য কোটি টাকা। এরকম অবস্থায় মুকেশ আম্বানি যদি বাইরে বেরোন তাহলে তিনি তার মানিব্যাগের ঠিক কত টাকা নিয়ে বেরোতে পারেনি এরকম প্রশ্ন কমবেশি সবার মনেই জাগে।

আমাদের মত মধ্যবিত্ত ফ্যামিলিরা মানিব্যাগে হয়তো ৪০০০ থেকে সর্বাধিক ১০০০০ টাকা অবধি রাখে। কিন্তু আম্বানির মত ধনীরা তারা ঠিক কত টাকা রাখে সেটাই জানার। অবশ্য এই প্রশ্নের জবাবের উত্তর দিয়েছেন মুখেশ আম্বানী নিজেই। তার এই গোপন কথাটি হিন্দুস্তান টাইমসের সাংবাদিক সম্মেলনে সকলের সামনে আনেন। তিনি বলেন যে তার নিজের সম্পর্কে এই তথ্যটি খুব কম মানুষ জানেন, সকলে হয়তো মনে করেন ভারতের ধনীতম ব্যক্তি, যার সম্পদ কখনোই গুনে শেষ করা যাবে না তিনি তাঁর নিজের সঙ্গে সর্বদা কতইনা অর্থ বহন করে থাকেন!! কিন্তু সবাই যেমনটা ভাবেন আসলে ব্যাপারটা কিন্তু সেরকম না।

টাকার সম্পর্কে তার অন্যরকম মূল্যবোধ রয়েছে, রিলায়েন্স গ্রুপের কর্ণধার মুকেশ আম্বানি মনে করেন যে টাকা হল এমন একটা পুঁজি যা কোম্পানিকে ঝুঁকির হাত থেকে রক্ষা করে এবং সেইসঙ্গে কোম্পানির চালনা করা সহজ এবং নমনীয় হয়ে ওঠে। তিনি এটাও জানিয়েছেন ‘আমি বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তিদের মধ্যে অন্যতম হওয়ার দরুন সকলে আমাকে যে দৃষ্টিভঙ্গিতে দেখেন তা আমি মোটেই পছন্দ করিনা।’ মুকেশ আম্বানির পকেটে কত টাকা থাকে? আমরা সাধারন মানুষেরা পকেট এ কোন টাকা ছাড়া কোথাও বেরোনোর পরিকল্পনাই করতে পারিনা। কিন্তু ভারতের সবচেয়ে ধনীতম ব্যক্তি মুকেশ আম্বানি এই পরিকল্পনা করার সাথে সাথে তিনি বাস্তবায়িত করে দেখান।

তিনি যখন বাইরে বের হন তার পকেট এ আসলে এক পয়সাও থাকে না। এবার তাহলে পাঠকের মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে নি তিনি নিশ্চয়ই ক্রেডিট কার্ড কিংবা ডেবিট কার্ড ইউজ করেন, কিন্তু না তাও করেন না তিনি। মুকেশ আম্বানির ব্যাগে কত টাকা থাকে? এবার মনে পাঠকের মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে তিনি নিশ্চয়ই মানিব্যাগ ব্যবহার করেন যেখানে তিনি টাকা রাখেন না হলে সবখানে তিনি চলাফেরা করেন কিভাবে! এই প্রশ্নের উত্তর বিপুল পরিমাণ অর্থের মালিক মুকেশ আম্বানির নিজেই দিয়েছেন। তিনি বলেছেন ‘ সেই ছোটবেলা থেকেই আমি পকেট এ কোন টাকা রাখিনা, এখনো রাখিনা। আমার কোন ক্রেডিট কার্ড নেই।

আমার আশেপাশে সব সময় সহযোগীরা থাকেন তারাই বিল পরিশোধ করেন এভাবেই আমার কাজ চলে যায়। ‘ তাহলে মুকেশ আম্বানি সব সময় কত টাকা নিয়ে ঘোরেন? একবার এইচ ডি লিডারশিপ অংশগ্রহণ করে ভারতের সবচেয়ে ধনীতম ব্যক্তি মুকেশ আম্বানি জানিয়েছিলেন ‘ আমি আমার সঙ্গে কখনোই টাকা রাখিনা। আমার নিজস্ব কোন দেবীর কারণেই আমার পকেটেও কখনো টাকা থাকেনা আমার সঙ্গে সর্বদাই একজন থাকেন যিনি আমার টাকা বহন করে থাকেন। আমার যখন টাকার প্রয়োজন হয় তখন তারাই সেই টাকা দিয়ে দেন।’ কিন্তু কেন মুখেশ আম্বানি নিজের কাছে টাকা রাখেন না?

পাঠকের মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে এত টাকা থাকা সত্ত্বেও কেন তিনি নিজের কাছে টাকা রাখেন না! কেন তিনি অন্যকে দিয়ে নিজের অর্থ বহন করান! আসলে টাকা নিজের সঙ্গে না রাখালেই অন্যতম ব্যতিক্রমী বৈশিষ্ট্যটি তিনি তার বাবার কাছ থেকে রপ্ত করেছেন। ধীরুভাই আম্বানি ও কখনই নিজের সঙ্গে টাকা রাখতেন না। একটি নিজস্ব টিম ছিল যারা সব সময় তার সঙ্গে থাকতেন এবং তার হয়ে টাকা বহন করতেন। এমনটা করতে গিয়ে একবার বিপদের মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে। টাকা না রাখার জন্য কি তাকে কোনদিনও সমস্যার মুখে পড়তে হয়নি? একবার বিমানে যাওয়ার সময় ধীরুভাই আম্বানির বিমান বাতিল হয়ে যায়।

তখন তাকে বাধ্য হয়েই অন্য একটি বিমানে করে গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে হয়। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সেই বিমান মাত্র একটি শিট ছিল অন্যান্য সদস্যরা জায়গা পাননি । তাই এত ধনী ব্যক্তি কেও তার সহযাত্রীর থেকে টাকা ধার করতে হয়েছিল। মুকেশ আম্বানির টাকায় কতদিন দেশ চালাতে পারে? অনেকেই হয়তো মনে মনে ভাবে নিজে মুকেশ আম্বানির কাছে যা টাকা আছে হয়তো তার দুই পুরুষ ভালোভাবে দেশ চালিয়ে নিতে পারবে। কিন্তু রিলায়েন্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কর্ণধার মুকেশ আম্বানি তার সম্পদ দিয়ে মাত্র কুড়ি দিনের মতো দেশ চালাতে সক্ষম হবেন। ব্লুমবার্গ বিলিয়নস ইন্ডেক্স এবং আন্তর্জাতিক তথ্য ভান্ডার একটি সমীক্ষা চালিয়ে এই তথ্যটি তুলে আনতে সক্ষম হয়েছে।

Check Also

প্রথম সন্তানের সাত মাসের মধ্যেই দ্বিতীয়বার মা হলেন বাঙালি অভিনেত এক পলকে দেখে নিন নায়িকার পরিচয়

প্রথমবার কৃত্রিম পদ্ধতিতে (IVF) পেয়েছিলেন মাতৃত্বের স্বাদ, তবে এবার সাধারণ উপায়েই দ্বিতীয়বার মা হলেন ‘বিগ-বস’ …