Breaking News

যাচ্ছে মাছটি। ছিপ দুর্বল হওয়ায় তুলতে পারছেন না উপরে।তুমুল ভাইরাল ভিডিও। খালের মধ্যে বড়শি দিয়ে টোপ ফেলতে লঙ্কা কান্ড। ছিপ এবং চাচাকেসহ টেনে নিয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদন:বড়শি দিয়ে মাছ ধরার ঐতিহ্য খুবই প্রাচীন। বর্ষা মৌসুমে বড়শি দিয়ে মাছ শিকারের বাংলার চিরায়ত দৃশ্যের দেখা মেলে এদেশের প্রতিটি অঞ্চলে। বিকেল হলেই মাছ ধরার এমন মনোমুদ্ধকর দৃশ্য যেন ফেলে আসা স্মৃতিকে ভীষণভাবে নাড়া দেয়। এ দৃশ্য দর্শকদের মনেও আনন্দের খোড়াক যোগায়।করোনাকালে বিকেলটা অনেকেই অবসরে কাটাচ্ছেন।

তাই এই সময়টা একেবারে ঘরে বসে না থেকে একটু-আধটু কাজে লাগানোর চেষ্টা করছেন। আর তারই অংশ হিসেবে বরশি দিয়ে মাছ ধরার কাজে অনেকেই ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন শিশু-কিশোর থেকে শুরু করে সব বয়সের মানুষ। বড়শিতে ধরাও পড়ছে মাছ। যেজন্য সবার মাঝে মাছ ধরার আগ্রহটাও বেশি।বড়শি দিয়ে মাছ ধরা সহজসাধ্য ও খরচ কম বলে অনেকেই ঝুঁকছেন মাছ ধরায়।

ছিপ, বড়শি ও সুতা দিয়ে খুব সহজেই বড়শি বানিয়ে মাছ ধরা সহজ। তাই দোহার উপজেলার নদ-নদী ও খালবিলে বড়শিতে ধরা পড়ছে টেংরা, পুঁটি, কই ,শিং, শোল, বোয়াল, বাইম, বেলে, পাবদা ও তেলাপিয়া সহ বিভিন্ন ধরনের মাছ। বড়শিতে বল্লা ও পিপড়ার ডিম দিয়ে ধরা হচ্ছে এই সমস্ত মাছ।মাছ ধরার জন্য এখন বের হয়েছে বিভিন্ন কৌশল এবং ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি।

তাতে করে জেলেদের সময় যেমন সাশ্রয় হচ্ছে তেমন তাদের শক্তির অপচয় কম হচ্ছে। এখন তারা অল্প সময়ে অধিক মাছ ধরতে পারছে এতে করে তাদের জীবনযাত্রার মান এখন উন্নত হচ্ছে। মাছ ধরে এখন তারা তাদের জীবন নির্বাহ করতে সক্ষম হচ্ছে।সময় ছিল যখন মানুষ অধিক কষ্ট করত কিন্তু মাছ হত অল্প এবং তাদের লাভ কম হতো এতে করে জীবন নির্বাহ করা অনেক কষ্টকর হয়ে যেত।

কিন্তু এখন যুগের সাথে তাল মিলিয়ে যন্ত্রপাতির উন্নতি হওয়ায় মানুষ অল্প সময়ে অধিক মাছ ধরে অধিক লাভবান হতে পারে।কথায় আছে বুদ্ধি থাকলে উপায় হয় ঠিক তেমনি বুদ্ধি খাটিয়ে যদি আপনি কোন কাজ করতে পারেন তাহলে সেটাতো সফলতা আসবেই। যারা বুদ্ধি খাটিয়ে কাজ করে তারা অধিক কাজ করেনা তারা অল্প কাজ করে কিন্তু অর্থ উপার্জন করে অধিক।

কিন্তু যাদের বুদ্ধি নেই তারা ঠিকই পরিশ্রম করে তবে পরিশ্রম অনুযায়ী অর্থ উপার্জন করতে পারে না।যেকোনো কাজ আপনি যদি ধৈর্য সহকারে করতে পারেন তাহলে অবশ্যই আপনি সক্ষম হবেন কিন্তু আপনি যদি অল্পতেই ধৈর্য্য হারা হয়ে যান তাহলে আপনার পক্ষে সফলতা অর্জন করা অনেক কষ্টকর হয়ে যাবে।মাছ ধারার কাজটি মোটেও ছোট কোনো কাজ নয়।

জেলেরা মাছ ধরে বলে আমরা সেটি খেতে পারি এবং আমাদের শরীরের প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করতে পারি।একবার ভাবুনতো জেলেৱা যদি মাছ না ধরত তাহলে আমরা কোথায় পেতাম এত প্রোটিনযুক্ত খাবার। আমরা যদি মাছ না খেতে পারতাম তাহলে আমাদের বেশিরভাগ মানুষই প্রোটিনের অভাবে ভুগত। এতে করে আমাদের দেহে নানা ধরনের রোগ বালাই বাসা বাঁধতো।

জেলেরা আমাদের জন্য মাছ ধরে বিধায় আমরা এই প্রোটিনযুক্ত খাবার খেতে পারি এবং সুস্থ থাকতে পারি।এই ভিডিওটিতে মাছ ধরার একটি অন্য রকম কৌশল দেখানো হয়েছে। এখানে গ্রামের এক চাচা সহজ পদ্ধতিতে মাছ ধরতেছে। গ্রামের সহজ সরল মানুষেরা বিভিন্ন পুকুর অথবা ছোটখাটো নদী থেকে বিভিন্ন সহজ পদ্ধতি অবলম্বন করে মাছ ধরে থাকে।

এখানে এক বৃদ্ধ চাচা বড়শি দিয়ে মাছ ধরার চেষ্টা করছেন।মাছ ধরার এই ভিডিওটি তুমুল ভাইরাল হয়েছে ইউটিউবে। খুবই অসাধারণ একটি ভিডিও।এত সহজ পদ্ধতিতে মাছ ধরার সত্যিই অসাধারণ।এই ভিডিওটি দেখে আপনি নিজেও মুগ্ধ হবেন। সত্যিই মানুষ চাইলে কিনা করতে পারে। বৃদ্ধ চাচা এই বয়সে এসেও কত সহজে মাছ ধরে মানুষকে তাক লাগিয়ে দিলেন।

Check Also

বিদেশী জাতের এই ময়ূর পালন করে, রাতারাতি লাখপতি হয়ে গেলেন সুন্দরী যুবতী। রইল ভিডিও সহ ময়ূর পালনের যাবতীয় গোপন টিপস।

নিজস্ব প্রতিবেদন:প্রাচীনকাল থেকেই সুস্বাদু মাংস হিসেবে পরিগণিত হয়ে আসছে পাখির মাংস। এরই ধারাবাহিকতায় আধুনিক যুগের …