Breaking News

শিশুর উচ্চতা বাড়াতে উপকারী যেসব খাবার

এটা সবারই জানা, নির্দিষ্ট বয়স পর্যন্ত সবার উচ্চতা বা হাইট বৃদ্ধি পায়। আবার সঠিক খাদ্য গ্রহণও শিশুর উচ্চতা বাড়াতে সহায়তা করে। এমন কিছু খাবার আছে যা শিশুদের উচ্চতা বাড়াতে ভূমিকা রাখে। যেমন- মুরগির মাংস : উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ মুরগির মাংস শিশুর টিস্যু এবং পেশি তৈরি করতে সহায়তা করে, যা তার উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য খুবই কার্যকর।

শাকসবজি : পালং শাক, বাঁধাকপির মতো পাতাজাতীয় শাকসবজিতে বিভিন্ন ধরনের পুষ্টিকর উপাদান থাকে। এই সবজিগুলিতে থাকা ভিটামিন-সি, ক্যালসিয়াম, আয়রন, ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাসিয়াম, ভিটামিন হাড়ের ঘনত্ব বাড়িয়ে উচ্চতা বাড়ানোর কাজ করে।

দুগ্ধজাত পণ্য : দুধ প্রোটিনের একটি ভালো উৎস, যা শরীরের কোষ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। এছাড়াও দুধ, পনির এবং দইয়ের মতো দুগ্ধজাত খাদ্যে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন-এ, বি, ডি ও ই উচ্চ পরিমাণে পাওয়া যায়। এসব উপাদানও শিশুর উচ্চতা বাড়াতে ভূমিকা রাখে।

ডিম : ডিমে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন পাওয়া যায়। এছাড়াও, এতে হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয় অনেক ধরনের পুষ্টিকর উপাদান পাওয়া যায়। শিশুদের ওপর চালানো এক গবেষণায় দেখা গেছে, যারা নিয়মিত ডিম খায় তাদের উচ্চতা বেড়েছে। ডিমের হলুদ অংশে উপস্থিত স্বাস্থ্যকর ফ্যাটও শরীরের উপকার করে।

স্যালমন মাছ : ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ স্যালমন মাছ স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। ওমেগা- থ্রি সমৃদ্ধ ফ্যাটি অ্যাসিড হৃৎপিণ্ডের জন্য উপকারী । এটি শরীরের বৃদ্ধি এবং বিকাশের জন্যও ভালো হিসেবে বিবেচিত । কিছু গবেষকের মতে, ওমেগা- থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড হাড়ের বৃদ্ধিতেও খুব কার্যকরী। এটি শিশুদের ঘুমের সমস্যাও দূর করতে পারে।

বাদাম : বাদামে উপস্থিত বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন এবং খনিজ উচ্চতার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। স্বাস্থ্যকর ফ্যাট ছাড়াও এতে ফাইবার, ম্যাঙ্গানিজ এবং ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে। এছাড়াও, এতে ভিটামিন-ই রয়েছে। এক গবেষণায় দেখা গেছে, বাদাম হাড়ের জন্যও খুব উপকারী

মিষ্টি আলু : ভিটামিন এ সমৃদ্ধ মিষ্টি আলু হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে উচ্চতা বাড়াতে সহায়তা করে। এটি ম্যাঙ্গানিজ, ভিটামিন-বি ছিক্স এবং পটাসিয়ামেরও একটি ভালো উৎস।

Check Also

এই ৫ টি লক্ষণ আপনার মধ্যে থাকলে আপনি জিনিয়াস

নিজস্ব প্রতিবেদন: এই ৫ টি লক্ষণ আপনার মধ্যে থাকলে আপনি জিনিয়াস – আপনার পরিক্ষার নম্বর …