Breaking News

হরিন শি,কার করতে এসে বিপদে সিং,হ! বন্ধু হরিনকে রক্ষা করতে মাত্র দুটি মহি,ষের সিং,হের সাথে এমন ল,ড়াই তুমুল প্রশংসিত নেটদুনিয়ায়।

মানুষ সামাজিক জীব। সমাজে বেঁচে থাকার জন্য মানুষকে নানা ধরনের কাজ করতে হয়। এসব কাজ করতে গিয়ে মানুষ অনেক সময় ক্লান্ত হয়ে পড়ে, মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। তখন জীবনে ভিন্নমাত্রার আনার জন্য নানা ধরনের বিনোদনের ব্যবস্থা করা হয়। এর অন্যতম একটি মাধ্যম কোথাও ঘুরতে যাওয়া। সেটি হতে পারে কাছাকাছি কোন পার্ক, চিড়িয়াখানা।

সেসব চিড়িয়াখানায় থাকে নানা ধরনের পশু পাখি।এসব পশুপাখি নানা খুনসুটির মাধ্যমে বিশেষ মুহূর্তের সৃষ্টি করে যা আমাদের নির্মল আনন্দ প্রদান করে। সেগুলো আমরা যত দেখি ততো আবেগে অভিভূত হয়ে যাই। পশুপাখির এসব খুনসুটি অনেক সময় ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম হিসেবে পরিগণিত হচ্ছে।

এসব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের নানা ধরনের ফিচার রয়েছে।তার মধ্যে অন্যতম একটি হলো ভিডিও শেয়ারিং। মানুষ তার দৈনন্দিন জীবনে তার আশেপাশে ঘটে থাকা নানা ধরনের মজার ভিডিও এসব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করে। এসব ভিডিওর মধ্যে থাকে নানা ধরনের হাস্যকৌতুক প্রাঙ্ক মোটিভেশনাল বক্তব্য প্রভৃতি।

তবে পশুপাখির নানা ধরনের খুনসুটির ভিডিও বেশি আকর্ষণীয় বলে এগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের কাছে বেশ জনপ্রিয়।ইন্টারনেট ও সোশ্যাল মিডিয়ার বদৌলতে অনেক অজানা বিষয় এখন মানুষের কাছে পরিষ্কার । আমরা সচরাচর কোন বিষয়ের জন্য আগে সোশ্যাল মিডিয়া সার্চ করে থাকি সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের জানার পরিধি কে আরো বাড়িয়ে তোলে।

আমরা সহজেই ছোট থেকে অনেক বড় বিষয় পর্যন্ত জানতে পারি। কোন কিছুই জানতে চাইলে আমরা সহজে সেটা সোশ্যাল মিডিয়া থেকে জানতে পারি। মিডিয়ার মাধ্যমে অনেক অজানা বিষয় যেমন গভীর জঙ্গলে কি হচ্ছে, পানির নিচে কি হচ্ছে অথবা কোথাও কোন বিপর্যয় হলে সহজে জানতে পারি ।

শুধুমাত্র এর জন্য প্রয়োজন মোবাইল ডাটা যা বর্তমান সময়ে খুবই সহজলভ্য যার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ার বিস্তার দিনে দিনে আরও বেশি পরিমাণ হচ্ছে । ছোট থেকে বড়দের সকলের অবসর সময়ে প্রধান একমাত্র মাধ্যম হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া।এক সময় ছিল যখন সকলে টিভি, ভিসিআর ,ডিভিডি এসবের প্রতি বেশি আসক্ত ছিল এবং প্রায় সকল ধরনের বিনোদন অন্যান্য কাজগুলো এই টিভি থেকেই হত।

যেমন কোন দেশে কোন প্রাণী কিভাবে কি করলো। আমরা তা টিভি থেকে জানতে পারতাম। কিন্তু বর্তমানে সোশ্যাল মিডিয়ার দ্বারা আমরা আরো সহজে জানতে পারবে এবং পশু পাখির খাদ্য চক্র কি কি বিদ্যমান।তারা কিভাবে শিকার করে সবই আমরা এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে খুব দ্রুত জানতে পারছি।

সোশ্যাল মিডিয়া আমাদের জানার অবস্থাটিকে সহজ করেছে। এমন একটি ভিডিও কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। যেখানে একটি সিং,হ জন্তুর খাদ্যচক্র দেখানো হয় এবং তা অল্প সময়ের মধ্যেই প্রচুর ভাইরাল হয়ে যায় এবং নেট দুনিয়ায় সাড়া ফেলে দেয়।

Check Also

ডুবার পানি শুকিয়ে যাওয়ায় আটকে গেল বড় মাছ, তিন বালক দারুন কায়দা করে ধরল, ভাইরাল সেই ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রাচীনকাল থেকেই বাঙালি জাতি কে মাছে ভাতে বাঙালি বলা হয়। বাঙালি মাছ খেতে …