Breaking News

১৭ বছর বয়সে শুরু করেছিলেন ব্যাবসা, দূর্দান্ত আইডিয়ার জেরে ৭০০০ কোটি টাকার মালিক

অন্য শহরে বেড়াতে যাওয়া পর্যটকের যদি সেখানে থাকতে অসুবিধা হয়, তাহলে চিন্তা করার কোনো দরকার নেই। আজ অনেক হোটেল এগ্রিগেটর কোম্পানি পর্যটকদের এই অসুবিধা সহজ করে দিয়েছে। এরকম একটি ভারতীয় কোম্পানি হল Oyo Hotels।

যার ভিত্তি মাত্র ১৭ বছর বয়সে একজন তরুণ ভারতীয় রিতেশ আগরওয়াল স্থাপন করেছিলেন। শৈশব থেকেই কিছু করার দৃঢ় সংকল্প, এই তরুণ উদ্যোক্তা এত অল্প বয়সে OYO হোটেলের ভিত্তি স্থাপন করেছিলেন। যখন বেশিরভাগ যুবক তাদের ক্যারিয়ার সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতেও সক্ষম হন না।

এভাবেই হোটেল এগ্রিগেটরের ধারণা এলো,রিতেশ একবার বলেছিলেন যে তাঁর বয়স যখন ১২ বছর, তিনি প্রথমবার একটি হোটেলে ছিলেন। তাও একটি স্কুল প্রেজেন্টেশনের জন্য তিনি দেশের বিভিন্ন স্থানে হোটেল এবং গেস্ট হাউসে বেশ কয়েকবার অবস্থান করেছিলেন। যেখানে তাকে অনেক অসুবিধার সম্মুখিন হতে হয়েছিল। তার মাথায় বুদ্ধি আসে কেন এমন কিছু করা যায় না যাতে মানুষ ঘরে বসেই সস্তার হোটেল খুঁজে পায়।

স্কুলে ছাড়ার পর স্টার্টআপ শুরু করেন,তিনি গত বছর তার স্কুল ছেড়েছিলেন এবং ২০১১ সালে, ১৭ বছর বয়সে, তিনি ওরাভেল স্টেজ নামে একটি স্টার্টআপ শুরু করেছিলেন। যেটি ২০১৩ সালে Oyo Hotels and Homes নামে বিখ্যাত হয়ে ওঠে। এই হোটেল চেইনটি রাতারাতি বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অ্যাগ্রিগেটর ব্র্যান্ড হয়েতো হয়ে ওঠেনি, তবে এটিকে সফল করার পিছনে রয়েছে নিষ্ঠা ও পরিশ্রম।

ভারতে এই স্টার্টআপ চালু হওয়ার এক দশকের মধ্যে, OYO ৮০টি দেশের ৮০০টি শহরে তাদের পরিষেবা সরবরাহ করেছে। এমনকি ২০১৮ সালেও এই কোম্পানিটি প্রথমবার দেশের সীমানার বাইরে পা রেখেছিল। মালয়েশিয়া থেকে শুরু হওয়া এই কোম্পানির যাত্রা দুবাই, চীন, সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়াসহ সব বড় দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। বর্তমান সময়ে ৪৩ হাজারেরও বেশি হোটেলে প্রায় ১০ লাখ কক্ষ রয়েছে। বর্তমান সময়ে তার কোম্পানির মূল্য প্রায় ৫ বিলিয়ন ডলারে পরিণত হয়েছে।

Check Also

ডুবার পানি শুকিয়ে যাওয়ায় আটকে গেল বড় মাছ, তিন বালক দারুন কায়দা করে ধরল, ভাইরাল সেই ভিডিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রাচীনকাল থেকেই বাঙালি জাতি কে মাছে ভাতে বাঙালি বলা হয়। বাঙালি মাছ খেতে …