Monday , July 26 2021
Home / ভাইরাল ভিডিও / ডোবায় কচুরিপনার নিচে লুকিয়ে ছিল প্রচুর কই ও মাগুর মাছ, পলো জাল দিয়ে মাছ ধরল গ্রামের বৌদি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

ডোবায় কচুরিপনার নিচে লুকিয়ে ছিল প্রচুর কই ও মাগুর মাছ, পলো জাল দিয়ে মাছ ধরল গ্রামের বৌদি, তুমুল ভাইরাল ভিডিও।

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমরা অনেকেই মাছ ধরতে পছন্দ করি ।বিশেষ করে যারা গ্রামে বসবাস করি তাদের বিভিন্ন ভাবে মাছ ধরার অভিজ্ঞতা অবশ্যই থাকবে। গ্রামে বসবাসকারীদের মধ্যে অনেকে মাছধরা পেশা হিসেবেও গ্রহণ করেছে। বিশেষ করে যারা খাল বিল ও নদ-নদীর তীরবর্তী এলাকায় বসবাস করে তাদের মধ্যে মাছ ধরার অভিজ্ঞতাটা বেশি থাকে। এবং নদীর পাড়ে গড়ে ওঠে জেলেদের বসবাস। তবে বর্তমানে অনেক মানুষ আছে যারা শখের বসে মাছ ধরে। বিশেষ করে যারা শহরে বসবাস করে তারা মাঝেমধ্যে বিভিন্ন অত্যাধুনিক সরঞ্জাম নিয়ে নদী কিংবা খাল বিলের ধারে মাঝেমধ্যে মাছ ধরতে যায়।

অনেক সময় শহর এলাকায় নদ-নদী খাল-বিল এর অভাবে শখের বশেও মাছ ধরাটাও সম্ভব হয়ে ওঠেনা। কেননা শহরাঞ্চলে খাল-বিল সচরাচর পাওয়া যায় না। আমরা অনেক সময় ইউটিউব কিংবা ইন্টারনেট এ বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন মাছ ধরার ভিডিও ভাইরাল হয়ে থাকে। যেগুলোতে দেখানো হয় বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় নতুন নতুন সরঞ্জাম ব্যবহার করে নদ-নদী কিংবাখাল-বিল থেকে কিভাবে মাছ ধরার হয় তার ভিডিও। আজকের ভিডিওটিও ঠিক তেমনি যেখানে দেখানো হয়েছে একটি মহিলা ডুবায় কচুরিপানার মধ্যে হতে কিভাবে পলো জাল দিয়ে বিভিন্ন প্রকার দেশি মাছ ধরা হয়।

এই ধরনের ভিডিও আমরা ইন্টারনেটের সচরাচর দেখতে পাই। ভাইরাল ভিডিও গুলোর মধ্যে এই ভিডিও গুলো অন্যতম। আজকের এই ভিডিওতে মাছ ধরতে যে সরঞ্জাম ব্যবহার করা হয়েছে তা একটি দেশীয় সরঞ্জাম। এই সরঞ্জাম থেকে পলো জাল বলা হয়। এটি বাঁশ দিয়ে তৈরি করা।যারা বাঁশ দিয়ে বিভিন্ন সরঞ্জাম তৈরি করতে পারে তারা এই বাঁশের জালটিও তৈরি করতে পারে। তাদের জন্য এই ধরনের জাল তৈরি করা খুব সহজ বিষয়। কিন্তু এই গানগুলো সচরাচর কিনতে পাওয়া যায় না। যারা এই জাল দিয়ে মাছ ধরে তারা নিজ হাতে তৈরি করে নেয়।

বাশ এবং চিকন সুতা ব্যবহার করে এই জালটি তৈরি করা হয়। বিশেষ করে জেলেরা এধরনের জাল তৈরিতে পারদর্শী থাকে। ভিডিওটিতে একটি মহিলা জাল নিয়ে তার এলাকার ডুবায় যায় মাছ ধরার জন্য। ডোবাটি ছিল কচুরিপানা দিয়ে একদম ঢাকা। তিনি এই কচুরিপানার নিচে জাল মারার সাথে সাথে বিভিন্ন প্রকার দেশীয় মাছ জালে উঠে আসে। যেমন: শিং,কই, মাগুর, পুটি ইত্যাদি। কিছুক্ষণের মধ্যেই তিনি অনেকগুলো মাছ ধরে ফেললেন। এই দেশীয় মাছ গুলো খেতে অনেক স্বাধের হয়ে থাকে ।

বর্তমানে বাজার থেকে অনেক দাম দিয়ে এই ধরনের মাছ কিনতে হয় ।এ ধরনের দেশীয় মাছ সচরাচর বাজারের পাওয়া যায় না। তবে কিছু কিছু গ্রাম্য এলাকার বাজারে মাঝে মাঝে দেখতে পাওয়া যায়। বিশেষ করে যারা গ্রামে বসবাস করে তারা সচরাচর এই ধরনের মাছ খেয়ে থাকে। গ্রামের বিভিন্ন ডুবায় এ ধরনের মাছ পাওয়া যায়। ইউটিউবে এরকম ভিডিও সচরাচর পাওয়া যাবে যেখানে এরকম বিভিন্ন দেশীয় সরঞ্জাম দিয়ে বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় মাছ ধরে। তবে এখনো গ্রাম্য এলাকায় গেলে এই ধরনের বিভিন্ন সরঞ্জাম দিয়ে মাছ ধরা সরাসরি দেখতে পাওয়া যায়।

খাল বিল ও নদ-নদীতে যারা সারাদিন মাছ ধরতে দেখা যায়। যেখানে সরঞ্জাম হিসেবে ব্যবহার করে বিভিন্ন প্রকার জাল বরশি ও অন্যান্য বিশেষ ধরনের পদ্ধতি। তবে সবচেয়ে বেশি মাছ ধরা হয় জাল এবং সেচ প্রক্রিয়ায়। শীতকালে যখন বিভিন্ন খাল বিলের পানি কমে যায় তখন এই পানিগুলো সেচে বিভিন্ন প্রকার মাছ ধরা হয়। আজকের এই ভিডিওটিতে কিভাবে জাল দিয়ে মাছ ধরা হয়েছে এবং কী ধরনের সরঞ্জাম ব্যবহার করা হয়েছে তা দেখার জন্য না টেনে পুরো ভিডিওটি দেখার অনুরোধ রইলো।

বিস্তারিত ভিডিওতে দেখুনঃ

কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত প্রদান করুন।

Check Also

রয়েছে চোখ বাধা ধরতে হবে হাঁস, গ্রামের উঠোনে আয়োজন করা হল মজার এক খেলা, কানার হাঁস ধরা খেলাটি তুমুল ভাইরাল নেটদুনিয়ায়!

আজ কলকাতা ডেস্কঃ মানুষ সামাজিক জীব। সমাজে বেঁচে থাকার জন্য মানুষকে নানা ধরনের কাজকর্ম করতে ...

You cannot copy content of this page